গাজীপুর মহানগরীর খাইলকুর থেকে৪৩ ক্যান বিয়ার ৬০পিছ ইয়াবাসহ র‌্যাব-১ চার মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

Top News এক্সক্লুসিভ ঢাকা বিভাগ প্রধান খবর শিরোনাম সারাদেশ
মাহবুবুল আলম

নিজস্ব প্রতিবেদক:

র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) সবসময় বিভিন্ন ধরণের অপরাধীদের গ্রেফতারের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সবসময়ই অবৈধ অস্ত্র ব্যবসায়ী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ী, বিভিন্ন সদস্যদের গ্রেফতার পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের লক্ষ্যে র‌্যাব একটি বিশেষ দল গঠন করে গোয়েন্দা কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা করে আসছে। 

গত ১৩/০৫/২০২০ ইং তারিখ অনুমান ২২.৩০ ঘটিকার সময় র‌্যাব-১, স্পেশালাইজড কোম্পানী, পোড়াবাড়ী ক্যাম্প, গাজীপুরের একটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন যে, জিএমপি, গাজীপুর গাছা থানাধীন খাইলকুর এলাকায় মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয় হইতেছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে অত্র কোম্পানীর কোম্পানী কমান্ডার লেঃ কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল-মামুন, (জি), বিএন এর নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্সসহ জিএমপি, গাজীপুর গাছা থানাধীন খাইলকুর সাকিনস্থ জয় বাংলা রোড আপন বাজার তামান্না বস্ত্র-বিতাণ এর সামনে পাঁকা রাস্তার উপর অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানকালে আসামী ১। মোঃ সোহাগ আহমেদ(২৪), পিতা-মোঃ রবিউল ইসলাম, মাতা-মোসাঃ নুরজাহান বেগম, সাং-উত্তর খাইলকুর, থানা-গাছা, জিএমপি, গাজীপুর, ২। মোঃ সুজন মিয়া(২৪), পিতা-মোঃ জজ মিয়া, মাতা-নেকী বেগম, সাং-মধ্য খাইলকুর, থানা-গাছা, জিএমপি, গাজীপুর, ৩। মোঃ আশরাফুল ইসলাম মিঠু(২৩), পিতা-এ. কে. এস. আলম, মাতা-মোসাঃ আয়শা খাতুন, সাং-মধ্য খাইলকুর, থানা-গাছা, জিএমপি, গাজীপুর, ৪। মোঃ লিটন মিয়া(৩৬), পিতা-মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধা আঃ মতিন, মাতা মোসাঃ আমেনা বেগম, সাং-নয়নপুর, থানা-জয়দেবপুর, জেলা-গাজীপুর, দেরকে হাতে নাতে গ্রেফতার করে। এসময় উপস্থিত স্বাক্ষীদের সামনে ফোর্সের সহায়তায় আসামীদের দখল হতে ৪৩(তিতাল্লিশ) ক্যান বিদেশী বিয়ার, ৬০(ষাট) পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ০৪ টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।
ধৃত আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, তারা দীর্ঘদিন যাবৎ চোরাইপথে বিদেশী মাদক আমদানি করিয়া গাজীপুর জেলার বিভিন্ন স্থানে বিক্রয় করে আসিতেছিল। আসামীদের জব্দকৃত মাদকদ্রব্য বিদেশী বিয়ার এবং ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে নিজ হেফাজতে রাখিয়া ২০১৮ সালের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনের ৩৬(১) এর সারণি১০(ক)/২৪(ক) ধারায় অপরাধ করিয়াছে। উক্ত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।